তেঁতুল খাওয়ার উপকারিতা জানুন


প্রকাশিত:
৪ ডিসেম্বর ২০২৩ ১২:৫৩

আপডেট:
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৫:২৫

ফাইল ছবি

তেঁতুল এমন একটি খাবার যার নাম শুনলেই জিভে জল চলে আসে। তেঁতুল মাখা, তেঁতুলের আচার কিংবা ফুচকার সঙ্গে তেঁতুলের টক— কে না পছন্দ করেন। অনেক তরকারিতেও এটি ব্যবহার করা হয়। সাধারণত খাবারে টক স্বাদ আনতে তেঁতুল ব্যবহার করা হয়।

পরিচিত এই ফলটির অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। শুধু তাই নয়, সৌন্দর্য বাড়াতেও তেঁতুল কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

তেঁতুলের পুষ্টিগুণ-

তেঁতুলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। এছাড়া এটি অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর। এতে আছে ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, আয়রন ও ফাইবার জাতীয় অনেক উপকারী উপাদান। ত্বকের পাশাপাশি চুলের জন্যও উপকারী ভূমিকা রাখে তেঁতুল।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে-

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুব উপকারী উপাদান তেঁতুল। এতে এমন একধরনের এনজাইম আছে যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

ওজন কমায়-

একেবারেই ফ্যাট ফ্রি একটি উপাদান তেঁতুল। এতে উচ্চ মাত্রায় ফাইবারও মেলে। গবেষণায় দেখা গেছে, রোজ তেঁতুল খেলে ওজন কমে। এটি খিদে কমিয়ে দেয়। আর তাই ওজন কমে খুব দ্রুত।

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করে-

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে তেঁতুল। টারটারিক অ্যাসিড, ম্যালিক অ্যাসিড এবং পটাশিয়ামের উৎস এটি। এই উপাদানগুলো কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা সারাতে সাহায্য করে।

হজম প্রক্রিয়া ঠিক রাখে-

তেঁতুলে হাইড্রোক্সিট্রিক অ্যাসিড পাওয়া যায়। এটি দেহে সরাসরি চর্বি উৎপাদন কমাতে কাজ করে। পাশাপাশি হজম প্রক্রিয়া ঠিক রাখতেও সহায়ক উপাদান তেঁতুল।

ত্বক পরিষ্কার করে-

মুখে দাগ থাকলে, তেঁতুল ব্যবহারে খুবই উপকার পাবেন। এটি আলফা-হাইড্রক্সি অ্যাসিড সমৃদ্ধ। বেশিরভাগ বিউটি পণ্যে এই উপাদানটি ব্যবহৃত হয়। ত্বককে ভেতর থেকে পরিষ্কার করতে কাজ করে তেঁতুল।

চোখের জন্য উপকারি-

তেঁতুলে থাকা ভিটামিন এ চোখের স্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য অপরিহার্য এবং ম্যাকুলার অবক্ষয় এবং বয়স-সম্পর্কিত ছানি পড়ার ঝুঁকি আরও কমায়। এতে এমন উপাদান রয়েছে যা চোখকে শুষ্ক হওয়া থেকে রক্ষা করে।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়ক-

অনেক গবেষণায় এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, রক্তচাপ ও কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সহায়ক একটি উপাদান তেঁতুল। এতে উপস্থিত ফাইবার কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়াতে দেয় না।

কীভাবে খাবেন তেঁতুল?

তেঁতুলের চাটনি বানিয়ে খেতে পারেন। চাইলে আচারও বানানো যায়। আবার তেঁতুলের পাল্প নিয়ে তেঁতুল মাখাও বানাতে পারেন।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:




রিসোর্সফুল পল্টন সিটি (১১ তলা) ৫১-৫১/এ, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
মোবাইল: ০১৭১১-৯৫০৫৬২, ০১৯১২-১৬৩৮২২
বিএলডি ফাউন্ডেশনের পক্ষে সম্পাদক : মাসুদ হাসান লিটন


Top